Blog

নেপচুন ল্যাবরেটরিজ লিঃ এ বিভিন্ন পদে নিয়োগ

নেপচুন ল্যাবরেটরিজ লিঃ এ বিভিন্ন পদে নিয়োগ দেওয়া হবে। দ্রুত সম্প্রসারণশীল আন্তর্জাতিক মানের জিএমপি সাটির্ফাইড ন্যাচারাল ঔষধ প্রস্তুতকারক প্রতিষ্ঠান নেপচুন ল্যাবরেটরী লিঃ এর সমগ্র দেশব্যাপী জনবল নিয়োগ করা হবে।

বিস্তারিত দেখুন ভিতরের পাতায়

নেপচুন ল্যাবরেটরিজ লিঃ এ বিভিন্ন পদে নিয়োগ
নেপচুন ল্যাবরেটরিজ লিঃ এ বিভিন্ন পদে নিয়োগ

সকল সরকারি বেসরকারি চাকুরী খবর জানতে আমাদের সাইটটি নিয়মিত ভিজিট করুন।

বেসরকারি চাকুরীগুলো দেখতে এখানে ক্লিক করুন।

বিভিন্ন এনজিওর চাকুরী বিজ্ঞপ্তি দেখতে এখানে ভিজিট করুন।

সরকারি চাকুরী বিজ্ঞপ্তি দেখতে এখানে ভিজিট করুন।

ঔষধ কোম্পানী:

বর্তমানে বাংলাদেশে ওষুধ শিল্পের অভ্যন্তরীণ বাজার প্রায় ১৩ হাজার কোটি টাকার উপরে এবং আন্তর্জাতিক বাজার ৬৫০ কোটি টাকারও বেশি। এ খাতে প্রবৃদ্ধির হার প্রায় ৯ শতাংশের উপরে। দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে বর্তমানে সরকারী তালিকাভূক্ত ৮৫০টি ছোট-বড় ওষুধ কারখানা ও ২৬৯টি এ্যালোপ্যাথিক ওষুধ প্রস্ততকারী বেসরকারী প্রতিষ্ঠান রয়েছে, যারা দেশের চাহিদার ৯৮ শতাংশ পূরণ করে বিশ্বের ১৬০টিরও বেশি দেশে ওষুধ রপ্তানী করে আসছে।

 দেশে বছরে এখন প্রায় ২৫ হাজার কোটি টাকার ওষুধ ও কাঁচামাল উৎপাদিত হচ্ছে, এবং এই শিল্পে প্রায় দু’লাখ মানুষের কর্মসংস্থান সৃষ্টি হয়েছে। পোশাক শিল্পের সাফল্যের পর ওষুধ শিল্পকে বাংলাদেশ অন্যতম প্রধান রফতানি পণ্য হিসেবে দেখছে।

বিভিন্ন প্রতিকুলতার মাঝেও মানুষের ওষুধের পাশাপাশি কৃষি ক্ষেত্রের ওষুধ তৈরিতেও অনুরূপ সক্ষমতা অর্জন করতে সক্ষম হচ্ছে এ শিল্প। বিদেশ থেকে প্রচুর টাকার ওষুধ আমদানি করে বাংলাদেশের অভ্যন্তরীণ চাহিদা মেটানো হয়।

ইতিহাস

যদিও বাংলাদেশে ওষুধ শিল্পের যাত্রা শুরু হয় পঞ্চাশের দশকের শুরুতে, একাত্তরের স্বাধীনতার কিছুদিন পর বাংলাদেশ ওষুধ উত্পাদন শুরু করে। তখন এ শিল্প এতটা উন্নত ছিলনা। শুরুতে মোট চাহিদার মাত্র ২০ ভাগ বাংলাদেশ উত্পাদন করতে সক্ষম ছিল, আর ৮০ ভাগই নির্ভর করত বৈদেশিক আমদানীর উপর, বিশেষ করে পশ্চিম পাকিস্তানের উপর।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *